শিশু সন্তানকে নম্রতা শেখানো

শিশু সন্তানকে নম্রতা শেখানো খুব সহজ কাজ আবার খুব কঠিনও। কিভাবে? খুব সহজ কারন শিশুকে যাই শেখাবেন তাই শিখবে। আর খুব কঠিন এই জন্য যে ঐ একই আচরনগুলি আপনাকেও চর্চা করতে হবে। তবে আপনার জন্য কঠিন তখনি হবে যদি আপনি সেটা মন থেকে না চান। আর খুবই সহজ হবে যদি মন থেকে চান। আর তাই আপনার সন্তানকে যদি নম্রতা ভদ্রতা শেখাতে চান আগে নিজেকে পাল্টাতে হবে। নইলে আপনার শিশু বিভ্রান্ত হবে। যাকে বলে সে কন্‌ফিউজ্ড্‌ থাকবে আপনার শেখানো বিষয়গুলিতে।

(১) এই যেমন ধরুন আপনি কি চাইছেন আপনার সন্তান বড়দের দেখলে সালাম দিক বা কেউ সালাম দিলে সে সেই সালামের উত্তর দিক সঠিক করে। খুব সহজ পদ্ধতি এই যে, আপনি সালাম দিন এবং সালামের উত্তর দিন। শিশুকে বলে বলে শেখাবার দরকার নেই এই আচরনটি। (সালাম নিয়ে আরো একটু বিস্তারিত আলোচনা করেছি এই লেখার শেষ পাতায়। সেটা পড়ে দেখতে পারেন।)

(২) মানুষ মাত্রই নেগেটিভ্‌ আচরনের কাজ করবে সেটা মাথায় রাখবেন। তারমানে আপনার শিশু যখনই কোন নেগেটিভ্‌ আচরনের কাজ করছে/করবে সাথে সাথে হুংকার চিৎকার দেবার কিছু নেই। আর মাইর থাপ্পরতো অবশ্যই নয়। চিৎকারও দিতে নিষেধ করছি আবার মাইর দিতেও নিষেধ করার পরামর্শ দিচ্ছি, তবে করতে বলছিটা কি, তাইতো? ওয়েল, তার কাজটি যে ভালো কাজ নয় সেটা তাকে বোঝান। বানিয়ে বানিয়ে গল্প বলুন যে ছোট বেলায় আপনি অমন বাজে কাজটা করতে গিয়ে আপনার বা আপনার কোন বন্ধুর কি হয়েছিলো। এইভাবে মোটিভেট করুন।

(৩) তার বিভিন্ন ভালো কাজের প্রশংসা করুন। আপনার শিশুটি যে খুবই ভালো মেয়ে/ছেলে সেটা তাকে বলুন। সে যখনই কোন ভালো কাজ করবে অমনি তার কাজের প্রশংসা করুন।

(৪) আপনি যদি কোন প্রকার ভুল করে ফেলেন তবে সরি/দু:খিত বলুন। আপনি সরি বলার অভ্যেস না করলে সেও বলবে না। সে ধরেই নেবে সরি বলা খুবই অপমান জনক কাজ। আর তাই আমরা অনেক সময় যখন কোন শিশুকে সরি বলতে বলি সে কিন্তু নাছর বান্দার মতো রাগ করে থাকে বা জিদ দেখায় কিন্তু তাও সরি বলেনা। আবার হয়তো যখন বলে তখন সে চিৎকার করে কেঁদে বলে। যেন তার সকল মান সম্মান শেষ হয়ে গেলো। তাই আপনিও সরি বলুন আপনার বিভিন্ন ভুলে। এবং বিশেষ করে আপনার শিশু সন্তানকে শুনিয়ে শুনিয়েই বলুন। আপনি তার মা-বাবা বলে সন্তানকে সরি বলা যাবেনা এমন ধারনা আপনার মাঝে থেকে থাকলে তা ঝেড়ে ফেলুন।

(৫) শিশুকে যখন কিছু আদেশ দেবেন ‘Please, দয়াকরে’ এই ধরনের শব্দের সাথে তাকে আদেশ করুন। যাকে বলে Polite হয়ে বলা আর কি।

(৬) যদি আপনি হন বাসার বড় কর্তাগনের একজন তবে আপনার প্রভাব শিশুর উপর একটু বেশিই পরতে পারে। আর তাই আপনি কিভাবে বাসার আর সকল সদস্যদের সাথে আচরন করছেন সেটাও খুব জরুরী।


যদি এই লেখার বক্তব্য ভালো লেগে থাকে এবং যদি প্যারেন্টিং বিষয়ে আরো আলোচনা করতে চান তবে Facebook Group-এ যোগ দিন। এই গ্রুপে আমরা প্রধানত বাংলায় আমাদের সন্তানদের নানা সমস্যা নিয়ে আলোচনা করে থাকি।


আর যদি হাতে একটু সময় থাকে ২-৪-৫-১০ মিনিটের কিছু ছোট ছোট video clip দেখবার তবে অবসরে চা/কফি খেতে খেতে আমার YouTube Channel টি ভিজিট করতে পারেন। আমার বিশ্বাস এই Channel টির অধিকাংশ video clip আপনার পছন্দ হবে।


No reproduction of this article may be made including electronic or paper reproduction without the express written consent of the author.

This entry was posted in আচরন, কথা বলা, শিশু, শিশুরযত্ন. Bookmark the permalink.

শিশু সন্তানকে নম্রতা শেখানো-এ 6টি মন্তব্য হয়েছে

  1. Rafiq বলেছেন:

    nice writing slee vi..

  2. nhm tanveer hossain khan বলেছেন:

    Wow! i fully agree with you🙂 (event though never had any kid ;))

  3. Abdul barek বলেছেন:

    Nice sharing! I will try to apply your all protocols to my beloved son

  4. Kazi Mohammad Ekram বলেছেন:

    ভালো লিখেছেন ভাই। আমাদের সকলের উচিত শিশুদের যত্ন নেয়া।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s